শর্তাবলী এবং নিয়মকানুন
শর্তাবলী এবং নিয়মকানুন

এই চুক্তি অনুযায়ী প্রথম পক্ষের (তালাবাত আত-তিজারিয়া
কোম্পানি, কমার্শিয়াল রেজিস্টার নং: 1010472753, সদর দপ্তর,
রিয়াদ, সৌদি আরব) ট্রেডমার্ক এর মালিক (দোন্দুন) এর, এটি তার
ইলেকট্রনিক উইন্ডোজের মাধ্যমে সেবা প্রদান করে। দুই পক্ষের
মধ্যে চুক্তিমূলক সম্পর্কের ব্যাখ্যা দেওয়া, দ্বিতীয় পক্ষ
(ক্লায়েন্ট) এবং প্রথম পক্ষের ইলেকট্রনিক উইন্ডোকে ব্যবহার
করার ক্ষেত্রে নিম্নলিখিত বিষয় মেনে চলবে এবং সম্মত হবে:
-(তালাবাত আত-তিজারিয়া কোম্পানি) কে সমস্ত প্রয়োজনীয়
ব্যক্তিগত তথ্যাদি প্রদান করা, এবং এর সঙ্গে সম্পর্কিত কোন
নতুন তথ্য হালনাগাদ করা, উদাহরণ স্বরূপ বলা হচ্ছে, মোট হিসাবে
নয়, (জাতীয় পরিচয় পত্র / পাসপোর্ট ও বাসস্থান, ই-মেইল, মোবাইল
নম্বর, বসবাসের ঠিকানা)।
-এই চুক্তিতে প্রথম পক্ষের ভূমিকা (ক্লায়েন্ট) এবং
ব্যক্তিপরিষেবা প্রদানকারী (ডেলিগেট) এর মাঝে সংযোগ স্থাপনের
নিমিত্ত একটি প্রযুক্তিগত প্ল্যাটফর্ম প্রদানে সীমাবদ্ধ থাকবে,
যাতে (ডেলিগেটদের) শিপিং এবং ওর্ডার (ক্লায়েন্ট) এর সরবরাহ
করার প্রক্রিয়া সহজতর করা যায়। যা উৎপাদন বা প্যাকেজিং
ইত্যাদি কার্যাবলীতে সামান্যতম হস্তক্ষেপ করা হবে না।
-দ্বিতীয় পক্ষের জন্য করণীয় হল তার নিকট ইন্টারনেট সংযোগ
থাকা এবং ডেলিভারি সহজতর করার সুবিধার্থে প্রতিনিধির সঙ্গে
যোগাযোগ উপেক্ষা বা অগ্রাহ্য করা উচিত নয় ।
দ্বিতীয় পক্ষের জন্য আবশ্যকীয় হল নিশ্চিত করার পর ওর্ডার
গ্রহণ করা, এবং যদি কোন অবস্থাতে ঐসব ওর্ডার গ্রহন না করা
হয় , যা তার পক্ষ থেকে নিশ্চিত করন করা হয়েছে, সেক্ষেত্রে প্রথম
পক্ষের জন্য তা যে কোন সময় ক্ল্যায়েন্টের একাউন্ট থেকে
ওর্ডারের মূল্যের পূর্ণ ডিসকাউন্ট দাবী করার অধিকার থাকবে অথবা
তার পেমেন্ট এর অনুরোধ করা, এবং দ্বিতীয় পক্ষ শিপিং এবং
ওর্ডার গ্রহন না করার ফলে প্রথম পক্ষের বা প্রতিনিধির বা অন্য
যে কোন পক্ষের যে ক্ষতি হবে তার দায়ভার গ্রহন করবে।
-দ্বিতীয় পক্ষের জন্য আবশ্যক হল পরিপূর্ণ এবং সুস্পষ্ট রূপে
ওর্ডার গ্রহনের স্থান নির্ধারণ করা এবং সেখানে বিদ্যমান থাকা
যাতে গ্রহন এবং প্রদান করতে পারে, যদি তিনি সেখানে বিদ্যমান না
থাকেন সেক্ষেত্রে প্রথম পক্ষ মূল্যের ডিসকাউন্ট দাবী করতে
পারেন এবং শিপিংকে প্রাপ্ত চালান হিসাবে বিবেচনা করতে পারেন।
ঘটনাচক্রে যে দ্বিতীয় পক্ষের (ক্লায়েন্ট) ওর্ডার ডেলিভারি সমর্পন
করার প্রতিনিধি পৌঁছলে, এবং তার কাছ থেকে ওর্ডারগুলো না পাওয়া
গেলে বা তার যোগাযোগগুলির কোনও উত্তর না দেয়া হলে অথবা তা
কোনও ভাবে উপেক্ষা করা হয়েছে, সেক্ষেত্রে প্রথম পক্ষের
ওর্ডারের মূল্যের পূর্ণ ডিসকাউন্ট ক্লায়েন্টের অ্যাকাউন্ট থেকে
কেটে নেওয়া বা তার ওর্ডারের মূল্য পরিশোধ করার অধিকার রয়েছে।
এটি পুনরাবৃত্তি করা হলে, প্রথম পক্ষ আইনগত বা আর্থিক
ব্যবস্থার মধ্যে উপযুক্ত মনে করে তা দ্বিতীয় পক্ষের (ক্লায়েন্ট)
বিরুদ্ধে গ্রহণ করার অধিকার রাখে, এবং দ্বিতীয় পক্ষের কাছ থেকে
ভবিষ্যতের কোন অনুরোধ গ্রহণ না করারও অধিকার রয়েছে।
-প্রথম পক্ষ শিপিং / ওর্ডার যত দ্রুত সম্ভব পৌছানোর জন্য তার
প্রতিটি প্রচেষ্টা ব্যয় করবে এবং এক্ষেত্রে সমর্পন করার
নির্ধারিত সময় অতিক্রান্ত হয়ে গেলে ন্যূনতম কোন দায়িত্ব থাকবে
না।
-যখন বিশেষ কোন পরিস্থিতি থাকবে অথবা প্রথম পক্ষ
প্রতিনিধিদের সঙ্গে দ্বিতীয় পক্ষের ওর্ডারগুলোর লিংক করতে
সক্ষম না হয়, তখন ক্লায়েন্টকে সক্ষমতা অনুসারে অবহিত করা
হবে, আর তা হবে কোন দায় ছাড়াই।
-দ্বিতীয় পক্ষের জন্য আবশ্যকীয় হল তার পক্ষ থেকে প্রাপ্ত শিপিং
/ ওর্ডার এর সংখ্যা, পরিমাণ, বিবরণ এবং ধরণ যাচাই করা উচিত,
তার নিজের পক্ষ থেকে নিবন্ধিত ওর্ডারের তালিকা অনুসারে। যদি এর
ব্যতিক্রম করা হয় বা কোন ধরনের ত্রুটি বিচ্যুতি পরিলক্ষিত হয়
তাহলে ওর্ডার পূর্ণ করতে বা রহিত করতে প্রতিনিধির সঙ্গে
তাৎক্ষণিক অনুর্ধ তিন মিনিটের মধ্যে যোগাযোগ করা আবশ্যক
10. – পণ্য / শিপিং এর নিরাপত্তা বং ব্যবহারের জন্য এর মেয়াদ
যাচাই করা একমাত্র ক্লায়েন্ট এর দায়িত্ব।
১১. দ্বিতীয় পক্ষের জন্য আবশ্যকীয় হল কোনো নিষিদ্ধ পণ্যের
ওর্ডার করার উদ্দেশ্যে আবেদনটি ব্যবহার না করা, যেসব সামগ্রী
বা ওর্ডারগুলির লেনদেন অনুমোদিত নয়, বা এমন উপাদান যার
সংরক্ষণের জন্য রাষ্ট্রীয় অনুমোদের প্রয়োজন হয় বা যা সৌদি
আরবের রাজত্বে বলবৎ আইন ও প্রবিধান লঙ্ঘন করে এসব পন্যের
ওর্ডারের বা গ্রহনের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে
আগাম অনুমতি না নিয়ে করলে তিনি একাই আইনি ও শৃংখলাগত
দায়িত্ব বহন করবেন ।
12. প্রথম পক্ষ নিষিদ্ধ বা অনুনোমদিত পন্য গ্রহন বা সমর্পন
করলে সেক্ষেত্রে দ্বিতীয় পক্ষ তাকে ত্যাগ করে চলে যেতে পারে।
13. – প্রতিনিধিদের পক্ষ থেকে পরিশোধ করা হয়েছে এমন
ওর্ডারগুলোর মূল্য পরিশোধ করা দ্বিতীয় পক্ষের জন্য আবশ্যক
এবং তা হবে ওর্ডার গ্রহনের পূর্বে, যদি না একটি ইলেকট্রনিক
পেমেন্ট পদ্ধতির মাধ্যমে এর পরিশোধ করা হয় ।
১৪. – ওর্ডার গ্রহনের সময় বা এর মাঝে কোন ধরনের সমস্যা সৃষ্টি
হলে দ্বিতীয় পক্ষের জন্য আবশ্যক হল প্রথম পক্ষকে অনুর্ধ তিন
মিনিটের মধ্যে অবহিত করতে হবে। যদি অবহিত না করা হয় তবে
দ্বিতীয় পক্ষ কর্তিক তা গ্রহন করা হয়েছে বলে ধর্তব্য হবে। এবং
ভবিষ্যতে কোন ধরনের শৃংখলাগত বা অর্থনৈতিক অধিকার রহিত হয়ে
যাবে।
১৫.-দ্বিতীয় পক্ষের বুঝতে হবে যে আল্লাহ না করুন যে কোন ধরনের
অনিবার্য কারণ বা ট্রাফিকগত দুর্ঘটনা ঘটতে পারে, যার ফলে প্রথম
পক্ষের নিকট নিবন্ধিত থাকা ওর্ডার গ্রহনে বিলম্ব হতে পারে। এসব
ক্ষেত্রে প্রথম পক্ষ বা তার প্রতিনিধি কোন ধরনের দায়ভার গ্রহন
করবে না। .
১৬. দ্বিতীয় পক্ষ প্রথম পক্ষ বা এর প্রতিনিধির সঙ্গে আলাপের
সময় সর্বোচ্চ শিষ্টাচার এবং আখলাক বজায় রাখবে, এর
পরিপেক্ষিতে যে ব্যত্যয় ঘটবে তার জন্য ব্যক্তিগত জবাবদিহিতার
মুখোমুখি হতে হবে।
১৭-দ্বিতীয় পক্ষ তার ইলেকট্রনিক উইন্ডোজের মাধ্যমে প্রথম
পক্ষের প্রয়োজনীয়তা অনুযায়ী তার তথ্য সংরক্ষণ করতে সম্মত
হবে এবং প্রথম পক্ষ তার সমস্ত বাণিজ্যিক ও সরকারি পর্যায়ে তার
তথ্যাদি বিবেচনা অনুযায়ী শেয়ার করা অনুমোদিত এবং ভবিষ্যতে
দ্বিতীয় পক্ষের কোনও ভাবেই এই বিষয়ে কোন ধরনের আপত্তি
করার অধিকার নেই ।
১৮- দ্বিতীয় পক্ষ প্রথম পক্ষের সঙ্গে গ্রহনযোগ্য যোগাযোগ
মাধ্যমে যোগাযোগ করার প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন করবে, এসব
মাধ্যমের বাইরে যা ঘটবে সেক্ষেত্রে দ্বিতীয় পক্ষ জানবে যে তা
কোনভাবে গণনা করা হবে না।
১৯- দ্বিতীয় পক্ষ প্রথম পক্ষের নীতির প্রতি অনুগামী হবে (এর
মধ্যে আছে গোপনীয়তা নীতি), তার নির্ধারিত প্রবিধান, আপডেট,
এবং এর উপর করা সমস্ত সংশোধনী।
20. দ্বিতীয় পক্ষের (ক্লায়েন্ট) এর উচিত, এই চুক্তিপত্রের সঙ্গে
সাংঘর্ষিক কোন কিছু পেলে বিশেষায়িত কোন কর্তৃপক্ষের নিকট
ধর্ণা দেয়ার পূর্বে তাৎক্ষণিক প্রথম পক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ
করা।
২১. এই চুক্তিটি সৌদি আরবের রাজত্বে প্রচলিত নিয়মকানুন
সাপেক্ষে এবং এই চুক্তির শর্তাবলী বা তার সংবিধানের ব্যাখ্যা বা
বাস্তবায়ন সংক্রান্ত দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধ ঘটলে তা আপোসে
নিষ্পত্তি হবে। এক পক্ষের বিজ্ঞপ্তির তারিখ থেকে ত্রিশ দিনের
মধ্যে, দলের মধ্যে যোগাযোগের মাধ্যমে এই বিরোধ মেটানোর ইচ্ছার
অন্য একটি অংশ । এটা সম্ভব না হলে দুই দল রিয়াদে চেম্বার অব
কমার্সের অনুমোদিত সালিশি কেন্দ্রের নিয়ম অনুযায়ী সালিসি
অবলম্বন করবে